৪৩ হাজার সেনা যোগ দেবে তুরস্কের সেনাবাহিনীতে

ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের কারণে ব্যাপক সংখ্যায় বহিষ্কার, চাকরিচুত্যির পর তুরস্ক ঘোষণা দিয়েছে, সেনাবাহিনীতে নতুন করে ৪৩ হাজার সেনা নেওয়া হবে। ২০১৮ সালের মধ্যেই তাদের নিয়োগ সম্পন্ন করা হবে। দেশটির রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম আনাদোলুর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৬ সালের জুলাই মাসে তুরস্কে ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের পর এ বছর ৪৩ হাজার সেনা নিয়োগ দেওয়া হবে।
মঙ্গলবার আনাদোলু সেনাবাহিনীর কোনো কর্মকর্তার নাম উল্লেখ না করে জানিয়েছে, ৩ হাজার ৭৫৫ জন অফিসার ও ৫ হাজার ৩৭৫ জন নন-কমিশন অফিসার নিয়োগ দেওয়া হবে। এ ছাড়া ১৩ হাজার ২১৩ জন বিশেষায়িত সার্জেন্ট ও ২০ হাজার ৫৯৫ জন অফিসারকে চুক্তিভিত্তিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। সেচ্ছায় যুক্তরাষ্ট্রে নির্বাসিত ধর্মীয় নেতা ফেতুল্লাহ গুলেনকে ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানের জন্য দোষারপ করে তুরস্ক। ফেতুল্লাহ গুলেনের অনুসারীরা এ অভ্যুত্থানের চেষ্টা চালায় বলেও দাবি করে তুর্কি সরকার। ওই অভ্যুত্থানে ৩০০ লোক নিহত হন। এরপর দেশের সামরিক বাহিনী ও অন্যান্য প্রতিষ্ঠানে ব্যাপক ভিত্তিক শুদ্ধি অভিযান চালানো হয়।
২০১৬ সালের জুলাইয়ে পর থেকে সরকারি কর্মচারী, নিরাপত্তাকর্মীসহ ১০ হাজার জনকে প্রত্যাহার করা হয়। এমনকি এদের মধ্যে অনেককে বিচারের মুখোমুখি হতে হয়েছে এবং তাদের জেলে পাঠানো হয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, ফেতুল্লাহ গুলেনের অনুসারীদের সরাতে এ শুদ্ধি অভিযান চালানো হয়। তবে তুর্কি সরকারের এ পদক্ষেপের কড়া সমালোচনা করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন। তুরস্কে মানবাধিকারকর্মীরা অভিযোগ করে আসছে, তুর্কি প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোয়ান তার হাতে ক্ষমতা আরো কুক্ষিগত করতে বিরোধীদের ওপর দমন-পীড়ন চালাচ্ছেন।
তথ্যসূত্র : আলজাজিরা অনলাইন

ভাগ