শীতে চুলের ধরণ বুঝে যত্ন নিন

নারীর সৌন্দর্যের বড় অংশ জুড়ে চুল। কিন্তু শীতের সময় চুলে শুরু হয় নানান সমস্যা। শীতে সব ধরনের চুলই শুষ্ক হয়ে যায়। তাই চুলের বিশেষ যত্নের প্রয়োজন হয়। ঘরে বসেই কিভাবে ‍নিজেই নিজের চুলে যত্ন নিবেন সে সম্পর্কে পরিবর্তনের পাঠকদের পরামর্শ দিয়েছেন গ্লোরিয়াস বিউটি কেয়ার ও স্পা এর স্বত্বাধিকারী ও হেয়ার এক্সপার্ট শান্তনা ইসলাম ভূইয়া।চুলের ধরণ

শুষ্ক: যদি চুল রুক্ষ, ডগা চেরা–ফাটা হয় তবে আপনার চুল শুষ্ক।

স্বাভাবিক: স্বাভাবিক চুলের ক্ষেত্রে মাথার তেলের পরিমাণ ঠিক থাকে।

তৈলাক্ত: শ্যাম্পু করার কিছুক্ষণ পরই চুল তেলতেলে আর নেতিয়ে থাকলে বুঝবেন আপনার চুল তৈলাক্ত।

শুষ্ক চুলের যত্ন

৮-১০টি জবা ফুল বাটা, ২ চা-চামচ মধু, ২ চা-চামচ আমলকীর রস, টক দই, ডিমের কুসুম, মেথি গুঁড়া ও ২ চা-চামচ ক্যাস্টর অয়েল একসঙ্গে মিশিয়ে পুরো চুলে লাগিয়ে রাখুন ঘণ্টাখানেক। তারপর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। চুলের উজ্জ্বল ও মসৃণ ভাব ফিরিয়ে আনতে শ্যাম্পু শেষে আধা মগ পানিতে লেবুর রস ও চায়ের লিকার মিশিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাকটি নিয়মিত ব্যবহার করলে চুলের উজ্জ্বলতা ও মসৃণতা ফিরে আসবে।

স্বাভাবিক চুলের যত্ন

এই চুল স্বাভাবিকভাবেই পরিচর্যা করুন। হট অয়েল ট্রিটমেন্ট ব্যবহার করতে পারেন সপ্তাহে ২ দিন। নিয়মিত চুল পরিষ্কার রাখুন। ন্যাচারাল কন্ডিশনিংয়ের জন্য চুলে তেল দিন। দিনে কয়েকবার মোটা দাঁড়ার চিরুণী দিয়ে চুল আঁচড়াবেন, তাহলে চুলে যেমন জট হবে না তেমনি মাথার ত্বকে রক্তসঞ্চালনও ভালো থাকবে।

এই চুলে বাড়তি পরিচর্যার প্রয়োজন নাই, কিন্তু ভালো রাখতে পরিচর্যা জরুরি।

তৈলাক্ত চুলের যত্ন

এ রকম চুলের জন্য শুকনো রিটা, শিকাকায়ি, আমলকী, সারা রাত ভিজিয়ে পরদিন ফুটিয়ে ছেঁকে নিন। তরল মিশ্রণটি শ্যাম্পুর বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন।

সপ্তাহে দুদিন বাড়িতে তৈরি হেয়ার প্যাক লাগান। ২ চা-চামচ নিমপাতা গুঁড়া, ২ চা-চামচ মেথি গুঁড়া, ২ চা-চামচ আমলা, ২ চা-চামচ টক দই, ১টি ডিমের সাদা অংশ, আধা কাপ উষ্ণ গরম পানি দিয়ে মিশিয়ে পুরো চুলে লাগিয়ে ঘণ্টাখানেক রাখুন। এরপর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

ভাগ