যশোরে ছাত্রলীগ নেতার ভাইকে বোমা মেরে হত্যা

যশোরের ঝিকরগাছায় বোমা হামলা চালিয়ে উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেনের ভাই আব্বাস হোসেন মোল্লাকে (৪০) হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। কামাল হোসেনের ওপর দুর্বৃত্তরা হামলা চালালেও তিনি প্রাণে বেঁচে যান। কিন্তু প্রাণ দিতে হয়েছে তার ভাইকে। নিহত আব্বাস উপজেলার চন্দ্রপুর গ্রামের হাজরা মোড়লের ছেলে। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে চন্দ্রপুর গ্রামে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। আওয়ামী লীগের দুই গ্রুপের অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে পুলিশ।
স্থানীয়রা জানান, বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলা ছাত্রলীগ সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন ও তার ভাই আব্বাস হোসেন চন্দ্রপুর গ্রামে তাদের বাড়ির সামনে অবস্থান করছিলেন। এ সময় অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা এসে তাদের ওপর বোমা হামলা চালায়। হামলার সময় কামাল হোসেন দৌড়ে সরে গেলেও বোমার আঘাতে গুরুতর আহত হন তার ভাই আব্বাস হোসেন মোল্লা। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথেই তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে। নিহতের ভাই উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, ‘উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুসা মাহমুদের অনুসারী পালসার বাবু, রিংকুর নেতৃত্বে ১৫/২০জন সন্ত্রাসী বোমা হামলা চালিয়েছে। প্রকাশ্যে তারা বোমা মেরে আমার ভাইকে হত্যা করেছে।’ ‘এলাকায় চাঁদাবাজি বন্ধে আমরা সোচ্চার ছিলাম। এজন্য পালসার বাবুর নেতৃত্বে এমপি গ্রুপের সন্ত্রাসীরা ক্ষিপ্ত ছিল। আমাকে হত্যা করার উদ্দেশ্যে বোমা নিক্ষেপ করে। কিন্তু লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে ভাইয়ের পিঠে পড়েছে বোমা। পেটের নাড়িভুড়ি বেরিয়ে গেছে।’ যশোরের সহকারী পুলিশ সুপার ইমরান মেহেদী হত্যাকাণ্ডের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ধারণা করা হচ্ছে, রাজনৈতিক বিরোধের জের ধরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করেছে। হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িতদের শনাক্ত ও আটকের জন্য পুলিশি অভিযান শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ভাগ