ভারতের আগে পাকিস্তানের পক্ষে খেলেছিলেন টেন্ডুলকার!

শচীন টেন্ডুলকার। ভারতের ক্রিকেট ঈশ্বর। ১৯৮৯ সালে পাকিস্তানের বিপক্ষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হয় তার। এটা সবার জানা। কিন্তু ভারতীয় এই ক্রিকেট লিজেন্ডের অভিষেক আরো দুই বছর আগেই হয়েছিল। আর সেটা ভারতের হয়ে নয়। ‘চিরশত্রু’ পাকিস্তানের হয়ে মাঠে নেমেছিলেন শচীন। নিজের আত্মজীবনী ‘প্লেয়িং ইট মাই ওয়ে’তে এ তথ্য জানিয়েছেন শচীন নিজেই।
শচীন তার আত্মজীবনীতে লিখেছেন, ‘আমি জানি না, ইমরান খানের মনে আছে কি না, একসময় আমি তার দলের হয়ে ফিল্ডিং করেছিলাম।’
ঘটনা ১৯৮৭ সালের। তিন মাস পর ১৪ বছরে পা দেবেন শচীন। সেসময় ইমরান খানের নেতৃত্বে ৫ টেস্টের একটি সিরিজ খেলতে ভারতে গিয়েছিল পাকিস্তান দল। ওই সিরিজটি ছিল আরেক ভারতীয় গ্রেট সুনীল গাভাস্কারের সর্বশেষ টেস্ট সিরিজ। সিরিজের আগে ক্রিকেট ক্লাব অব ইন্ডিয়ার (সিসিআই) গোল্ডেন জুবিলি উপলক্ষ্যে একটি প্রদর্শনী ম্যাচ আয়োজন করা হয়। আর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী পাকিস্তানের পক্ষে ওই ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে মাঠে নেমেছিলেন শচীন। যিনি দীর্ঘ ২৪ বছর একশ কোটি ভারতবাসীর আশা-আকাঙ্ক্ষার কেন্দ্রবিন্দু ছিলেন।
২০ জানুয়ারি, ১৯৮৭। মুম্বাইয়ের ব্র্যাবোর্ন স্টেডিয়ামে ৪০ ওভারে ওই ম্যাচে সিসিআই একাদশের বিপক্ষে মাঠে নামে সফরকারী পাকিস্তান। সিসিআইর অধিনায়ক ছিলেন হেমন্ত কেনক্রে। পাকিস্তান তখন ফিল্ডিংয়ে। এ সময় জাভেদ মিয়াঁদাদ ও ইকবাল কাদের বিশ্রামের জন্য মাঠ ছাড়েন। তখন পাকিস্তানের অধিনায়ক ইমরান খান হেমন্তকে কয়েকজন বদলি ফিল্ডার দেয়ার অনুরোধ করেন। এ কথা শুনে শচীন অধিনায়ক হেমন্তের কাছে মাঠে নামার আগ্রহ প্রকাশ করেন। কিন্তু হেমন্ত অনুমতি দেয়ার আগে শচীন পাকিস্তানের পক্ষে ফিল্ডিং করতে মাঠে নেমে পড়েন। সেদিন ২৫ মিনিটের মতো পাকিস্তানের হয়ে নিজ দেশের বিপক্ষে ফিল্ডিং করেছিলেন শচীন।
ওই ম্যাচের বর্ণনা দিতে গিয়ে হেমন্ত বলেছেন, ‘বদলি খেলোয়াড় হিসেবে খসরু (ভাসানিয়া) ছিল প্রথম পছন্দ। খসরু শচীনের চেয়ে বড় ছিল। এবং সে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের প্রতিভাবান খেলোয়াড় ছিল। খসরু ফিল্ডিং করেছিল অফ সাইডে। আর শচীন লেগ সাইডে, ডিপ মিড-উইকেটে। এসময় একটি ক্যাচ মিস করে শচীন। এবং ক্যাচ মিস করে সে খুবই হতাশ হয়ে পড়ে।’
সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।

ভাগ