ভাড়া দিতে না পারায় মল্লিকা শেরাওয়াতকে বাড়ি ছাড়ার নির্দেশ!

বাড়ি ভাড়া দিতে পারছেন না বলিউড অভিনেত্রী মল্লিকা শেরাওয়াত। তাই তাকে বাড়ি খালি করে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে ফ্রান্সের এক আদালত। এদিকে এই নির্দেশের বিরুদ্ধে পাল্টা আদালতে মামলা দায়ের করতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।
বলিউডকে গুডবাই জানিয়েছেন অনেক আগেই। এখন প্যারিসে আছেন মল্লিকা। বিয়েও করেছেন এক ফরাসী নাগরিককে। বিয়ের পর প্যারিসের এক অভিজাত এলাকায় একটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাট ভাড়া নেন দুজনে। অভিযোগ, একবার ছাড়া আর ভাড়া দেননি তারা। এখন সেই ভাড়া বাড়তে বাড়তে ৭৮,৭৮৭ ইউরোতে গিয়ে ঠেকেছ।
বাড়ির মালিক জানিয়েছেন, গত বছর জানুয়ারি মাস থেকে তারা এই ফ্ল্যাটে এসে থাকা শুরু করেন। ফ্ল্যাটের মাসিক ভাড়া ৬,০৫৪ ইউরো। ভারতীয় মুদ্রায় চার লাখ টাকা। কিন্তু বাড়ির মালিকের অভিযোগ একবার ছাড়া আর কোন মাসের ভাড়া দেননি মল্লিকা। তিনি জানিয়েছেন, একবার মাত্র ২৭১৫ ইউরো দিয়েছিলেন মল্লিকা। তারপর থেকে এক পয়সাও দেননি। এখন সেই ফ্ল্যাট ভাড়া গিয়ে ঠেকেছে ৭৮৭৮৪ ইউরোতে। ভারতীয় মুদ্রায় যা প্রায় ৬০ লাখ টাকা।
গত বছর নভেম্বর মাসে এই দম্পতির আইনজীবী আদালতকে জানায়, তার মক্কেল আর্থিকভাবে কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। যদিও বাড়ির মালিক আদালতকে জানান, এই সময়ে মল্লিকা দশ মিলিয়ন টাকা রোজগার করেছেন। দুপক্ষের বক্তব্য শোনার পর ডিসেম্বর মাসে আদালত অবশ্য মল্লিকা ও তার স্বামীকে ৭৮,৭৮৭ ইউরো ফেরত দেওয়ার নিদেশ দেয়। সেই সঙ্গে তাদের আসবাবপত্র বাজেয়াপ্ত করার সবুজ সঙ্কেত দেয় আদালত।
মল্লিকা অবশ্য বরাবরই এই খবর গুজব বলে উড়িয়ে দিয়েছেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় জানান, তার প্যারিসে কোন ফ্ল্যাট নেই। যদি কেউ ফ্ল্যাট উপহার করে থাকে তার নাম ঠিকানা যেন তাকে দেওয়া হয়।

ভাগ