বাগেরহাটে কোচিং সেন্টারের প্রশ্নপত্র ফাঁস : অভিযুক্ত শিক্ষক চাকরিচ্যুত

বাগেরহাট অফিস ॥ বাগেরহাট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের খণ্ডকালীন শিক্ষক শেখ মো. বেল্লাল হোসেনের বিরুদ্ধে বার্ষিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ উঠায় তাকে চাকরিচ্যুত করেছে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। একই সাথে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল মতিন হাওলাদার বাদী হয়ে বাগেরহাট মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। তবে পুলিশ এখনো তাকে গ্রেফতার করতে পারেনি।
গত ৯ ডিসেম্বর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে তৃতীয় শ্রেণির অনুষ্ঠিত বার্ষিক পরীক্ষায় খণ্ডকালীন শিক্ষক বেল্লাল হোসেন পরিচালিত তার কোচিং সেন্টারের মডেল টেস্টের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা হয় বলে অভিযোগ ওঠে। এই ঘটনা তদন্ত করতে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সহকারী প্রধান শিক্ষক আমজাদ হোসেনকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে। তদন্ত কমিটি প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় ওই শিক্ষক বেল্লাল হোসেনের জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়ে তাকে চাকরিচ্যুতির সুপারিশ করে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়।
প্রধান শিক্ষক মো. আব্দুল মতিন হাওলাদার বলেন, তদন্ত কমিটির প্রতিবেদন পাওয়ার পর স্কুলের শিক্ষক কাউন্সিল কমিটির সিন্ধান্ত অনুযায়ী অভিযুক্ত শিক্ষক বেল্লাল হোসেনকে চাকরিচ্যুতির করা হয়েছে। এছাড়া তার বিরুদ্ধে রাতে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছি। স্কুলের সুনাম, শিক্ষার মানকে সমুন্নত রাখতে বিদ্যালয়ের খণ্ডকালীন আইসিটি বিষয়ের শিক্ষক শেখ মো. বেল্লাল হোসেনের বিরুদ্ধে এই শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। বাগেরহাট মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) ও মামলা তদন্ত কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম বলেন, বাগেরহাট সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মতিন হাওলাদার বাদী হয়ে ১৯৮০ সালের পাবলিক পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ আইনের ৪ ধারায় তার বিদ্যালয়ের শিক্ষক বেল্লাল হোসেনের বিরুদ্ধে একটি মামলা করেছেন। আমি মামলার তদন্ত শুরু করেছি। আসামিকে ধরতে অভিযান চলছে।

ভাগ