বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক প্রভাবিত করবে না জেরুজালেম

সম্প্রতি আন্তর্জাতিক সমঝোতাকে উপেক্ষা করে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে জেরুজালেমকে স্বীকৃতি দেয় যুক্তরাষ্ট্র। এর পরপরই বাংলাদেশসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশ এ নিয়ে উদ্বেগ জানায়। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে ওই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে এক ভোটাভুটির সময় যুক্তরাষ্ট্র হুমকি দেয় যারা তার সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে ট্রাম্প প্রশাসন। তারপরও বাংলাদেশসহ ১২৮ দেশ ওই সিদ্ধান্তের বিপক্ষে ভোট দেয়। যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষে ভোট দেয় মাত্র ১০টি দেশ।
এর ফলাফল কী হতে পারে জানতে চাইলে সরকারের একজন কর্মকর্তা বলেন, ট্রাম্প প্রশাসনের হুমকি ছিল সবার জন্য প্রযোজ্য অর্থাৎ তিনি কোনও একটি নির্দিষ্ট দেশকে উদ্দেশ করে কিছু বলেননি। এরইমধ্যে যুক্তরাষ্ট্র শাস্তিমূলক ব্যবস্থা হিসেবে জাতিসংঘে তার আর্থিক অবদান অর্ধেক কমিয়ে দিয়েছে এবং এর ফলে বাংলাদেশসহ অন্যান্য দেশের আর্থিক অবদান বেড়ে যাবে। তবে এই ১২৮ দেশের বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোনও ব্যবস্থা নেওয়ার কোনও ইঙ্গিত যুক্তরাষ্ট্র দেয়নি।
তিনি বলেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার আগে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বাংলাদেশ যে সহায়তা পেতো, সেটি এখন কমে গেছে। তবে এ সিদ্ধান্ত জেরুজালেম ইস্যুর আগেই নেওয়া হয়।
জেরুজালেম ইস্যুকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ-যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে কোনও প্রভাব পড়বে, এমন কোনও ইঙ্গিত নেই জানিয়ে সরকারের আরেকজন কর্মকর্তা বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্র আমাদের সর্বাত্মক সহায়তা দিয়েছে এবং তাদের উৎসাহের কারণে নিরাপত্তা পরিষদে একাধিকবার এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। সেই সহায়তা এখনও বজায় আছে এবং বাংলাদেশকে সহায়তা করার অবস্থান থেকে তারা সরে আসেনি।
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে কূটনীতি
প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর প্রচলিত বৈশ্বিক কাঠামোর প্রতি তার অনাস্থা এবং দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ককে বেশি গুরুত্ব দেওয়ার কারণে অন্যান্য দেশ তাদের পররাষ্ট্রনীতিতে পরিবর্তন এনেছে। বাংলাদেশের কূটনীতিতে অগ্রাধিকারের ক্ষেত্রগুলোর মধ্যে ইউরোপের সঙ্গে আরও রাজনৈতিক ঘনিষ্ঠতার কথা বলা হলেও যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে তার সম্পর্কেও বিষয়টি সাধারণ অর্থনৈতিক ক্ষেত্রের মধ্যে সীমাবদ্ধ।
সম্প্রতি পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলী পররাষ্ট্রনীতি বিষয়ক এক সেমিনারে বাংলাদেশের ৮ দফা অগ্রাধিকার পররাষ্ট্রনীতির কথা তুলে ধরেন। এই ৮ দফায় ইউরোপের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ রাজনৈতিক যোগাযোগের কথা বলা হলেও যুক্তরাষ্ট্রে সঙ্গে সম্পর্কটি অর্থনৈতিক অংশীদারিত্ব ও বহুপাক্ষিক সম্পর্কের মধ্যে সীমাবদ্ধ। বাংলাদেশের পঞ্চম অগ্রাধিকার কূটনৈতিক নীতিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য অন্য দেশগুলোর সঙ্গে অংশীদারিত্বের সম্পর্ক তৈরি করবো। এরমধ্যে আমরা ভারত, চীন, জাপান, যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে এই ধরনের অংশীদারিত্বের সম্পর্ক গড়ে তুলেছি।

ভাগ