বসতবাড়ির পাশে মৃতদেহ দাহ করায় বিরূপ প্রতিক্রিয়া

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর সদর উপজেলার কচুয়া ইউনিয়নে বসতবাড়ির পাশে মৃতদেহ দাহ করায় বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এলাকার বিদ্যমান শ্মশান ঘাট রেখে ওই মৃতদেহ বসতবাড়ির পাশে দাহ করা হয়। যশোর সদর উপজেলার ১৩ নং কচুয়া ইউনিয়নের রায়মানিক গ্রামের জাজের আলী, হামিদ আলী ও নির্মল ঘোষ জানিয়েছেন, বিগত ২২ ডিসেম্বর স্থানীয় ঘোষপাড়ার কতিপয় একরোখা ব্যক্তি মৃত ফকির ঘোষের পরলোকগত স্ত্রীর মৃতদেহ তাদের বসতবাড়ি সংলগ্ন স্থানে দাহ করে। স্থানীয় বাসিন্দা ছাড়াও অনেকে বাধা দিলেও দাহকারীরা তা গ্রাহ্য করে না। জাকির আলী ও হামিদ আলীর বাড়ির সকল নারী-পুরুষ ও শিশুরা দাহকার্যের ভয়াবহতায় ভীত হয়ে বাড়ি ত্যাগ করতে বাধ্য হয়। এতে নানাদিক শান্তি নষ্ট হয়েছে এবং আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে। জাকির আলী জানিয়েছেন, দাহস্থান তার বসতবাড়ির একই জমিতে অবস্থিত। ভুক্তভোগীরা এই জবরদস্তিমূলক কার্যকলাপ, আবাসিক পরিবেশ বিনষ্টকরণ, মানসিক ত্রাস ও আতঙ্ক সৃষ্টিকারীদের থেকে রেহাই পাওয়ার জন্য জনপ্রতিনিধি, প্রশাসন, পুলিশ ও বিশিষ্ট ব্যক্তিদের হস্তপে, শ্মশানঘাট বিদ্যমান এবং স্মরণাতীতকাল থেকে হিন্দু সম্প্রদায় ওই ঘাট ব্যবহার করে আসছে।

ভাগ