ধীরে ধীরে উন্নতি হচ্ছে জননেতা তরিকুল ইসলামের শারীরিক অবস্থা, দোয়া কামনা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ধীরে ধীরে উন্নতি হচ্ছে বরেণ্য রাজনীতিক বিএনপির নীতিনির্ধারক ফোরামের (স্থায়ী কমিটি) অন্যতম সদস্য সাবেক মন্ত্রী তরিকুল ইসলামের শারীরিক অবস্থা। তাঁর চিকিৎসায় গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা গতকাল সোমবার সকাল ১১ টার দিকে বৈঠক শেষে পরিবারের সদস্যদের এ তথ্য জানিয়েছেন। বোর্ডের সদস্যরা জানান, আইসিইউতে চিকিৎসাধীন তরিকুল ইসলামের শরীরের কিছু পরিবর্তন এসেছে। যা অনেক আশা জাগানোর মতো। তবে কবে নাগাদ বর্ষীয়ান এই রাজনীতিককে কেবিনে ফিরিয়ে নেয়া হবে সে বিষয়টি চিকিৎসকরা নিশ্চিত করে বলতে পারেননি। তরিকুল ইসলামের সুস্থতা কামনায় গতকালও তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করা হয়েছে।
হাসপাতালে অবস্থানরত যশোর জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খোকন জানান, সোমবার সকাল ১১ টার দিকে চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিকেল বোর্ডের সদস্যরা স্বজনদের কাছে ব্রিফিং করেছেন। এসময় চিকিৎসকরা অনেকটা আশার কথা শুনিয়েছেন। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, তাঁর শরীরে যেসব গুরুতর সমস্যা রয়েছে সেসব কিছুর মধ্যে পরিবর্তন দেখা দিয়েছে। যা উন্নতির ইঙ্গিত দিচ্ছে। শনিবার আইসিইউতে নেয়ার পর তরিকুল ইসলামের শারীরিক অবস্থার যে অবনতি ছিলো তার চেয়ে কিছুটা উন্নতি হয়েছে বলেও চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।
এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপি নেতা দেলোয়ার হোসেন খোকন জানান, চিকিৎসকরা তাদেরকে জানিয়েছেন এ ধরনের রোগী আস্তে আস্তে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসে। ফলে কবে নাগাদ তাঁকে আইসিইউ থেকে কেবিনে ফিরিয়ে নেয়া হবে সে বিষয়টি নিশ্চিত করেননি চিকিৎসকরা। তবে আগামীকাল (মঙ্গলবার) ডাক্তাররা পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবেন বলে তিনি জানান। দেলোয়ার হোসেন খোকন জানান, সোমবারও সকালে আইসিইউতে গিয়ে তাঁর স্বজনরা খোঁজ নেন। তাঁর শারীরিক অবস্থার উন্নতি দেখে পরিবারের সদস্যরাও অনেকটা আশাবাদী হয়ে উঠছেন। তরিকুল ইসলামের ছোট ছেলে বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত আবারও বাবার জন্য সবার কাছে দোয়া কামনা করেছেন। তিনি পিতার দ্রুত সুস্থতা কামনা করে দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।
এদিকে বিএনপির বর্ষীয়ান এই নেতার অসুস্থতার কথা শুনে প্রতিদিন অ্যাপোলো হাসপাতালে স্বজন ও দলীয় নেতাকর্মীদের ভীড় বাড়ছে। তরিকুল ইসলামের জেলা যশোরের বিভিন্ন উপজেলা থেকে শত শত নেতাকর্মী ছুটে গেছেন অ্যাপোলো হাসপাতালে। সেখানে গিয়ে নেতাকর্মীরা প্রিয় নেতাকে একনজর দেখার জন্য উদগ্রীব হয়ে আছেন। অনেকে সারারাত ধরেই হাসপাতালের বারান্দায় নির্ঘুম রাত কাটাচ্ছেন। হাসপাতালে জননেতা তরিকুল ইসলামের সহধর্মিনী যশোর জেলা বিএনপির সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক অধ্যাপক নার্গিস বেগম, বড় ছেলে লোকসমাজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান শান্তনু ইসলাম সুমিত, ছোট ছেলে বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সহসাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিতসহ আত্মীস্বজন, দলীয় নেতাকর্মীরা সার্বক্ষণিক অবস্থান করছেন। এর আগে গত শুক্রবার তরিকুল ইসলামকে পুরান ঢাকার গেন্ডারিয়ার আসগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এরপর তাঁকে নিবীড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউতে) রাখা হয়েছিল। সেখানে অবস্থার উন্নতি না হওয়ায় শনিবার তাঁকে অ্যাপোলো হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। ওই হাসপাতালেই আইসিইউতে বর্তমানে চিকিৎসাধীন আছেন তিনি। তরিকুল ইসলাম দীর্ঘদিন ধরে হৃদরোগ, ডায়াবেটিস, কিডনি, ফুঁসফুঁসে ইনফেকশনসহ নানা জটিলতায় ভুগছেন। এদিকে তরিকুল ইসলামের সুস্থতা কামনায় গতকাল সোমবারও যশোরে বিভিন্ন এলাকার মসজিদে মসজিদে দোয়া হয়েছে। এসময় তারা প্রিয় এ মানুষটির সুস্থতা কামনায় যে যার অবস্থান থেকে দোয়া করেন। জেলা শহর ছাড়াও অন্যান্য উপজেলার বিভিন্ন মসজিদে তাঁর জন্য বিশেষ দোয়া করা হয়।

ভাগ