উপশহরে ছুরিকাঘাত করে সোয়া এক লাখ টাকা ছিনতাই মামলার আসমিরা এখনো আটক হয়নি; বাদী আতঙ্কে

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোর উপশহরে ইজিবাইকের একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজার নুর ইসলাম সেতুকে ছুরিকাঘাত এবং সোয়া এক লাখ টাকা ছিনতাই মামলার আসামিরা এখনো আটক হয়নি। মামলার আসামিরা দুর্ধর্ষ প্রকৃতির সন্ত্রাসী। তারা এলাকায় বিচরণ করলেও পুলিশ তাদের আটক করতে না পারায় আতঙ্কে রয়েছেন বাদীসহ প্রতিষ্ঠানের লোকজন। তাদের মাঝে ক্ষোভও বিরাজ করছে। অবশ্য পুলিশের দাবি, আসামিদের আটকের জন্য চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।
গত ১০ অক্টোবর রাত পৌনে নয়টার দিকে উপশহরের বাসিন্দা নজরুল ইসলাম ঝন্টুর ছেলে অন্তর ও উজ্জল সরদার ওরফে মঈনের ছেলে পলাশসহ আরো দু/তিনজন সন্ত্রাসী মানসী সিমেনা হল এলাকার রুমি এন্টারপ্রাইজের ম্যানেজার নুর ইসলাম সেতুকে ছুরিকাঘাত করে। এ সময় সন্ত্রাসীরা প্রতিষ্ঠানের অফিস থেকে এক লাখ ২৫ হাজার টাকা এবং তিনটি দামি মোবাইল ফোন সেট লুট করে নিয়ে যায়। ওই তিনটি মোবাইল ফোন সেটের মূল্য ৩৬ হাজার টাকা। রুমি এন্টারপ্রাইজের মালিক উপশহর সেক্টর-১২ এলাকার কাজী মোক্তার হোসেনের ছেলে কাজী কামরুজ্জামান। তার বাড়ির দ্বিতীয়তলায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের অফিস। সেখানে ঢুকেই সন্ত্রাসীরা ম্যানেজার নুর ইসলাম সেতুকে ছুরিকাঘাত করে লুটপাট চালায়। এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানের মালিক কাজী কামরুজ্জামান বাদী হয়ে অন্তর ও পলাশকে আসামি করে কোতয়ালী মডেল থানায় একটি মামলা করেন। কিন্তু মামলা হলেও এখনো পুলিশ আসামিদের কাউকে আটক করতে পারেনি। সূত্র জানায়, আসামিরা দুর্ধর্ষ প্রকৃতির সন্ত্রাসী। তাদেরকে এলাকায় ঘোরাফেরা করতে দেখা যাচ্ছে। অথচ পুুলিশ তাদের আটক করতে পারেনি। অপরদিকে আসামিরা এলাকায় প্রকাশ্যে ঘোরাফেরা করায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন বাদীসহ তার প্রতিষ্ঠানের লোকজন। তাদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে। এ বিষয়ে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উপশহর ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ এসআই ফারুক হোসেন জানান, আসামিরা পলাতক রয়েছে। তাদের আটকের জন্য জোর চেষ্টা চলছে।

ভাগ