ইউপি চেয়ারম্যানের হাত থেকে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান উদ্ধারের দাবিতে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা

শেখ মাসুদ হোসেন, সাতক্ষীরা ॥ সাতক্ষীরার পাটকেলঘাটা থানার নগরঘাটা ইউপি চেয়ারম্যানের ইঙ্গিতে তার লোকজন স্থানীয় ত্রিশমাইল মোড়ের এক ব্যক্তির পৈত্রিক সম্পত্তিতে নির্মাণাধীন কফি হাউজ দোকান ঘর) ভাংচুর করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সাতক্ষীরা প্রেসকাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন পাটকেলঘাটা থানার নগরঘাটা গ্রামের মৃত রিয়াজ উদ্দিন শেখের ছেলে মোঃ মহিউদ্দিন শেখ।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, দীর্ঘদিন প্রসাবে থেকে দেশের ফেরার পর কষ্টার্জিত অর্থে নগরঘাটা এলাকার ত্রিশমাইল মোড়ে পৈত্রিক ২ একর ২৩ শতক জমিতে একটি কপি হাউজ করার সিদ্ধান্ত নেই। একমাস ধরে কাজ করার পর কফি হাউজ নির্মাণ প্রায় শেষ হওয়ার পর্যায়ে এসেছে। শুক্রবার ১২ জানুয়ারী কপি হাউজ উদ্বোধন করার কথা। কিন্তু ৯ জানুয়ারী বেলা ১টার দিকে হঠাৎ করে নগরঘাটা ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান লিপু আমাকে উক্ত কপি হাউজের কাজ বন্ধের জন্য ইউনিয়ন পরিষদের প্যাডে হাতে লেখা একটি চিঠি পাঠান। চিঠি পেয়ে কাজ কেন বন্ধ রাখবে জানার জন্য চেয়ারম্যানের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি আমাকে হুমকি দিয়ে বলেন কাজ বন্ধ না করলে লোকজন দিয়ে দোকান ঘর ভেঙ্গে দিব। ওই দিন রাতেই চেয়ারম্যানের লোকজন আমার দোকান ঘর ভেঙ্গে পার্শ্ববর্তী পুকুরে ফেলে দেয়। এতে আমার দুই লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি হয়েছে। পরদিন ১০ জানুয়ারী আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে ভাংচুরের বিষয়টি প্রত্যক্ষ করি এবং বিষয়টি ৬ নং ওয়ার্ডের মেম্বর জাহাঙ্গির হোসেনকে জানাই।
তিনি অভিযোগ করে বলেন, জনগণ ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান-মেম্বর নির্বাচিত করেন এলাকার মানুষের জানমালের নিরাপত্তা জন্য। কিন্তু ইউপি চেয়ারম্যান লিপু রক্ষক না হয়ে নিজেই ভক্ষক হয়ে এধরনের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। চেয়ারম্যানর লোকজন এলাকার সরকারি গাছ কাটা, সরকারি জমিদখলসহ বিভিন্ন অপকর্মের সাথে জড়িত। এসবের প্রতিবাদ করতে গেলে চেয়ারম্যান ও পেটুয়া বাহিনী অস্ত্র শস্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে মারপিট ও হুমকি ধামকি প্রদর্শন করে। সে এলাকায় কারো তোয়াক্কা করে না। আমি বর্তমানে চেয়ারম্যানের ভয়ে ভীতসন্ত্রস্থ হয়ে পড়েছি। যে কোন সময় ইউপি চেয়ারম্যান লিপু আমার ও পরিবারের সদস্যদের মিথ্যে মামলায় জড়ানোসহ বড় ধরনের ক্ষয়ক্ষতি করতে পারে।
তিনি সন্ত্রাসীদের মদদদাতা চেয়ারম্যানের হাত থেকে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান উদ্ধার ও জীবনের নিরাপত্তার দাবিতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

ভাগ